Blog Posts

পোর্টেবল এয়ার কুলারের বাইরের অংশ যেভাবে পরিষ্কার করবেন

এয়ার কুলার বডিঃ
প্রতি কয়েক সপ্তাহে, আপনার কুলারের বাইরে জলাবদ্ধতা পরিষ্কার করা উচিত। ইউনিটটি বন্ধ করুন। ইউনিটের বাইরের অংশটি পরিষ্কার করতে একটি স্যাঁতসেঁতে কাপড় ব্যবহার করুন। শুধু পানি ব্যবহার করুন। এমন কোনও রাসায়নিক ব্যবহার করবেন না যা ক্ষতির কারণ হতে পারে।

ছাঁকনিঃ
ফিল্টারগুলি সাধারণত ফ্যানের পিছনে এবং পাশে ইনস্টল করা হয় (উভয় উল্লম্ব এবং অনুভূমিকভাবে)। আপনি হালকা সাবান এবং উষ্ণ জল দিয়ে ফিল্টারটি ধুয়ে ফেলতে পারেন। ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। মাসে একবার ফিল্টার পরিষ্কার করার পরামর্শ দেওয়া হয় সবাইকে।

এয়ার কুলার গন্ধ দূর করুনঃ
বাষ্পীভবন হবার কারণে কুলার গুলিতে দুর্গন্ধ হতে পারে। পোর্টেবল কুলারের গন্ধ আরও ভাল করতে কিছুটা তেল যুক্ত করা ভাল। সুগন্ধযুক্ত তেল গুলির 15 ফোঁটা ভিনেগারের সাথে মিশিয়ে স্প্রে বোতলে রাখুন। প্রয়োজনীয় তেল মিশ্রণটি পরিষ্কার করার পরে এয়ার কুলারে স্প্রে করুন।

যান্ত্রিক অংশগুলি পরীক্ষা করুনঃ

মোটরঃ
যান্ত্রিক অংশগুলি পরীক্ষা করুন। কুলারের বিভিন্ন অংশ আলাদা করার সময় প্রতিটি অংশ ভালো ভাবে চেক করুন। যন্ত্রাংশ গুলোকে ভালো রাখতে প্রতিটি মেশিনে তেল ব্যবহার করতে পারেন।

পাখার ব্লেডগুলোঃ
দীর্ঘ সময় ব্যবহারের পরে, পাখা আটকে যেতে পারে, তাই আপনার হাইজিনে মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন। যাইহোক, ফ্যান পরিষ্কার করার সময়, আপনাকে এটি পরিষ্কার করার জন্য একটি স্যাঁতসেঁতে তোয়ালে ব্যবহার করতে হবে, সরাসরি পানিতে ধোয়া এড়ানো উচিত কারণ এতে প্যানেল এবং নেতৃত্বাধীন ডিসপ্লে রয়েছে। মাসে একবার ফ্যান পরিষ্কার করা উচিত।

এয়ার কুলার পরিষ্কারের কিছু টিপসঃ

  • এয়ার কন্ডিশনার পাখা পরিষ্কার করার আগে আপনাকে সরঞ্জামগুলি বন্ধ করে বিদ্যুত সরবরাহ আনপ্লাগ করতে হবে।
  • খুব বেশি শক্ত ডিটারজেন্ট ব্যবহার করবেন না।
  • হাইজিনের দিকে মনোযোগ দিন যাতে কোনও ইঞ্জিনে আগুন লাগার কারণে বিদ্যুৎ ফাঁস না হয়।
  • পরিষ্কার করার পরে, উপাদানগুলি পুনরায় ফিট করার আগে এবং ব্যবহারের আগে শুকিয়ে নিন।

কিভাবে আপনি আপনার বাসার এয়ার কুলারটি পরিষ্কার রাখবেন

একটি এয়ার কুলার স্যাম্প কুলার হিসাবেও পরিচিত। এটি কোনও এয়ার কন্ডিশনার নয়, কারণ এটি কেবল জলীয় বাষ্পীভবন দিয়ে বাতাসকে ঠান্ডা করে। আপনি মেশিনে পানি রেখেছিলেন এবং এটি পুরো পানি জুড়ে একটি বাতাস প্রবাহিত করে এবং পানি বাষ্পীভবন করে বাতাসকেও ঠান্ডা করে তোলে। এয়ার কুলারগুলি উষ্ণ এবং শুষ্ক জলবায়ুর জন্য আদর্শ, যেহেতু তারা বাতাসে প্রচুর পরিমাণে আর্দ্রতা যোগ করে। প্রায় তিন মাস ব্যবহারের পরে এয়ার কুলারের ফিল্টার এবং পানির বেসিনটি পরিষ্কার করা উচিৎ। এতে করে আপনার এয়ার কুলারটি ভালো থাকবে।

পরিষ্কারের ধাপ সমুহ

প্রথম ধাপঃ
প্রাচীরের সকেট থেকে এয়ার কুলারটি আনপ্লাগ করুন।

দ্বিতীয় ধাপঃ
এয়ার কুলারটি খুলুন এবং এয়ার ফিল্টার এবং পানির বেসিনটি সরান।

তৃতীয় ধাপঃ
একটি সিঙ্কে গরম পানি এবং ১ চামচ ডিস সোপ দিয়ে পূর্ণ করুন। পানির বেসিনটি গরম পানির ভিতর রাখুন এবং পরিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত এটি স্ক্রাব করুন। পরিষ্কার পানি দিয়ে পানির বেসিন ধুয়ে নিন। তোয়ালে দিয়ে বেসিনটি শুকিয়ে নিন।

চতুর্থ ধাপঃ
যে কোনও প্রকার ধুলা ময়লা অপসারণ করতে পরিষ্কার পানি দিয়ে এয়ার ফিল্টারটি ধুয়ে ফেলুন। বায়ু ফিল্টারটিকে সম্পূর্ণভাবে শুষ্ক হতে দিন।

পঞ্চম ধাপঃ
একটি স্যাঁতসেঁতে কাপড় দিয়ে এয়ার কুলারের বাইরের অংশটি মুছুন। পানির বেসিন এবং এয়ার ফিল্টারটি কুলারে আবার রেখে দিন।

চলে এসেছে গ্রীষ্মকাল। আপনার স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য আপনার এয়ার কন্ডিশনার প্রস্তুত?

বেশিরভাগ বাংলাদেশীর কাছে সবচেয়ে বেশি ও বড় ব্যয়গুলির মধ্যে একটি হলো বাড়ি গরম এবং ঠান্ডা রাখা। এই গ্রীষ্মে স্বাচ্ছন্দ্য বজায় রাখতে এবং অর্থ সাশ্রয় করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শক্তি বিভাগ, আপনি বাড়িতে থাকাকালীন আপনার থার্মোস্ট্যাটটি 78F (26 সি) তে সেট করার পরামর্শ দেন। আপনার এয়ার কন্ডিশনারটিকে এই স্তরে সেট করলে আপনাকে শীতল থাকতে এবং অস্বাভাবিকভাবে উচ্চ হাড়ে বিদ্যুতের বিল এড়াতে সাহায্য করে।

এই মুহুর্তে, আপনি কম ইউটিলিটি বিল উপভোগ করছেন, বিশেষত যদি আপনি পারফেক্ট বসন্তের আবহাওয়ার সাথে একটি নাতিশীতোষ্ণ একটি জলবায়ুতে বাস করছেন। তবে আপনি হয়তো ভাবছেন “আমি বিশ্বাস করতে পারি না গ্রীষ্মের দিন আসছে”। শীঘ্রই, আপনি কেবল আপনার এই স্বাচ্ছন্দ্য বজায় রাখতে এয়ার কন্ডিশনার চালাবেন।

যদি আপনার এয়ার কন্ডিশনের সিস্টেম প্রস্তুত না হয় তবে এটি আপনাকে প্রচুর অর্থ ব্যয় করাতে পারে। এই সহজ পদক্ষেপগুলি আপনার গ্রীষ্মকালীন গ্রীষ্মের মাসগুলির জন্য এসি প্রস্তুত করতে সাহায্য করবে।

১/ ফিল্টার পরিবর্তন করুনঃ

এটি সম্ভবত শীতাতপনিয়ন্ত্রণ রক্ষণাবেক্ষণের সবচেয়ে সহজতম ফর্ম তবে অনেক লোক এটি ইগনোর করে যায়। এই বিষয়টির উপর আমল করে না। আপনার এসিটি সুচারুভাবে চলতে রাখতে প্রতি দু’মাস ফিল্টার প্রতিস্থাপন করা উচিত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শক্তি বিভাগ বলে, আপনি অ্যামাজন, ওয়ালমার্ট, এসি প্রাইস বিডি বা অন্যান্য খুচরা বিক্রেতার মাধ্যমে নতুন ফিল্টার অর্ডার করতে পারেন।

২/ ঘন ঘন লাইন পরিষ্কার করুনঃ

আপনার এয়ার কন্ডিশনার থেকে দূরে যে পাইপটি গ্যাস বহন করে তা আটকে যেতে পারে। যদি পাইপটি আটকে যায় তবে এটি এয়ার কন্ডিশনার – বা আপনার বাড়িতে ফিরে যেতে পারে – এবং আপনার কাছে একটি অগোছালো সমস্যা এবং একটি বড় মেরামতের বিল আসতে পারে। এটির মোকাবেলায় পাইপটি কোথায় বেরিয়েছে তা সনাক্ত করুন এবং এটি সঠিকভাবে বয়ে চলেছে তা নিশ্চিত করুন।

৩/একটি প্রোগ্রামযোগ্য থার্মোস্ট্যাট ইন্সটল করুনঃ

আপনার যদি ইতিমধ্যে একটি না থাকে তবে আপনি প্রোগ্রামেবল থার্মোস্ট্যাট ইনস্টল করে এয়ার কন্ডিশনার বা তাপের প্রয়োজন যখন প্রয়োজন হয় না এমন সময়ে তাপ কমিয়ে আনার জন্য সেট করে আপনি আপনার এসির পাওয়ার সঞ্চয়  করতে পারেন, যেমন আপনি যখন কাজের জন্য দূরে থাকবেন । ভাগ্যক্রমে, এই থার্মোস্ট্যাটগুলি নিজে নিজে ইনস্টল করা বেশ সহজ এবং কেবলমাত্র কয়েকটি সরঞ্জাম প্রয়োজন।

 ৪/ বাইরের ইউনিটের কোয়েলগুলো পরিষ্কার করুনঃ

শীতকালে, আপনার এসির বাইরের ইউনিটটি ধুলো, কাদা এবং অন্যান্য ধ্বংসাবশেষ সংগ্রহ করে আসছে, বিশেষত যদি আপনি কোনও কভার ব্যবহার না করেন। এই সমস্ত ধূলিকণা এসির বিভিন্ন ইউনিটকে আটকে রাখে, আপনার এসিটি আস্তে আস্তে চালিত হতে পারে। হালকা ধূলিযুক্ত ইউনিটগুলির জন্য, বিদ্যুতটি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করুন এবং ইউনিটের বাইরের দিকে একটি ব্রাস দিয়ে পরিষ্কার করুন এবং হাল্কা পানি স্প্রে করুন। ভারী মৃত্তিকার ইউনিটগুলির জন্য, একটি হার্ডওয়্যার স্টোর থেকে বাণিজ্যিক এয়ার-কন্ডিশনার ক্লিনার কিনুন।

 ৫/ পাখাগুলি পরিষ্কার করুনঃ

বাইরের ইউনিটের পাখাগুলি পরিষ্কার করতে হবে যা, আপনার এসি আরও ভাল চালাতে সহায়তা করবে। পাখা পরিষ্কার করতে, একটি নরম ব্রাশ যেমন দাঁত ব্রাশ বা একটি ছোট গাড়ি পরিষ্কারের ব্রাশ ব্যবহার করুন। পাতলা ধাতুটি বাঁক না দেওয়ার বিষয়ে সতর্ক হয়ে প্রতিটি পাখা ধীরে ধীরে ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করুন। যদি আপনি দেখতে পান যে এই পাতলা ধাতব পাখাগুলি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, আপনি এগুলি সোজা করার জন্য বিভিন্ন ধরণের সরঞ্জাম ব্যবহার করতে পারেন।

 ৬/ কংক্রিট স্ল্যাব পরিষ্কার করুনঃ

আপনার বাইরের ইউনিট পরিষ্কার হওয়ার পরে, কংক্রিটের স্ল্যাব লেভেল কিনা তা নিশ্চিত করতে একটি লেভেল ব্যবহার করুন। যদি তা না হয় তবে ইউনিটটিকে আপনার ঘরকে শীতল রাখতে আরও কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। যদি স্ল্যাব লেভেল না থাকে তবে এটি বোর্ডের সাথে মিশিয়ে নিন এবং যতক্ষণ না অবধি এটি লেভেল হয়। আপনার কাজ শেষ হওয়ার পরে বোর্ডটি সরান।

 ৭/ বাইরের ইউনিটের চারপাশ থেকে ময়লা সরানঃ

আপনার বাইরের ইউনিটের কাছাকাছি অবস্থিত উদ্ভিদ, পাতা, উচ্চ ঘাস এবং ময়লা-আবর্জনা আপনার এসির কার্যকারিতা হ্রাস করতে পারে। আপনি আপনার এসি চালানো শুরু করার আগে, ঘাস কেটে ফেলুন, ধুলাবালি ও কংক্রিট পরিষ্কার করুন এবং গাছগুলিকে অপসারণের বিষয়টি বিবেচনা করুন যা ইউনিটটিকে অবরুদ্ধ করে। গ্রীষ্মের সময় মাসে মাসে কমপক্ষে একবার ধুলাবালির জন্য ইউনিটটি পরীক্ষা করে দেখুন।

আপনি কি চার্জার ফ্যান কিনছেন?

বসন্ত শেষ হওয়ার সময় প্রায় , গরমের মাস এখন। চার্জার ফ্যান কেনার সর্বোত্তম সময় গরম আসার আগেই। যাইহোক, আপনি যদি গরম তাপ অনুভব করেন, তবে এটিই সঠিক সময় । আপনার একটি ফ্যান রয়েছে বা আরও ভালো একটি চার্জার ফ্যান কিনতে হবে। এখানে আমরা চার্জার ফ্যান কেনার জন্য কোন বিষয়গুলো মনে রাখা আপনার জন্য দরকার তা নিয়ে আলোচনা করব …

1. চার্জিং এর জন্য কেমন সময় লাগে এবং চার্জ দেওয়ার পর কেমন সময় চলে ?
এই দুটি কারণগুলি সম্ভবত চার্জার ফ্যান কেনার সময় সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ । আপনি যদি প্যাকেজ বা ম্যানুয়ালটিতে নিজেই এই তথ্যটি দেখতে না পান তবে আপনি যে স্টোরটি থেকে কিনতে যাচ্ছেন তার কোনও কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধির সাথে কথা বলতে পারেন
আপনি কেবল মাত্র সময় ব্যবহার করে সারা দিন আপনার ফ্যানকে চার্জ দিয়ে রাখতে চান না বলেই এটি কথা গুলো জানা গুরুত্ব অনেক বেশি ।
সাধারণত, সব চার্জার ফ্যানের মডেল গুলির মধ্যে পণ্য বিবরণটি প্যাকেজের পাশাপাশি থাকে ব্যবহারের সব কিছু স্পষ্টভাবে লেখা থাকবে। ম্যানুয়ালটিতে চার্জ করার জন্য ব্যাটারি পুরোপুরি চার্জ হতে কত সময় নেয় এবং চার্জার ফ্যান চলার সময়টি পুরোপুরি চার্জের ব্যাটারিতে ফ্যান কতক্ষণ কাজ করবে।
সাধারণত, রিচার্জেবল ফ্যান একাধিক গতি সরবরাহ করে। চার্জার ফ্যান চালানোর সময়টি আপনি ফ্যানটি যে গতিতে চালিত করেন তার উপর নির্ভর করবে।
ধরেন , আপনার চার্জার ফ্যানকে পুরো গতিতে একটি রিচার্জেযোগ্য ফ্যান 2 থেকে 4 ঘন্টা এবং ধীর গতিতে 9 ঘন্টা পর্যন্ত চলতে পারে।

আপনি কি চার্জার ফ্যান কিনছেন? 1

2. ব্যাটারি রিচার্জ সাইকেল কি?
ব্যাটারি রিচার্জ সাইকেল যা আপনাকে জানায় যে ব্যাটারি দুর্বল হওয়ার আগে ফ্যানের অন্তর্নির্মিত ব্যাটারিটি কতবার ব্যবহার এবং রিচার্জ হয়েছিল।
যেমন, 500 এর ব্যাটারি রিচার্জ সাইকেল এর অর্থ হল একটি ব্যাটারি যদি প্রতি একদিন ব্যবহার এবং রিচার্জ হয় তবে এটি প্রায় 500 দিন (অর্থাৎ 16 মাস) অবধি চলবে।

3. ব্যাটারি টাইপ এবং ব্যাটারি ক্ষমতা
ব্যাটারি টাইপ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা। এটি আপনাকে ব্যাটারিটি নষ্ট হওয়ার পরে প্রতিস্থাপনযোগ্য হবে কিনা তা নির্ধারণ করতে সহায়তা করবে।
যদি আপনার চার্জার ফ্যানের মডেল ওই কোম্পানির মালিকানাধীন ব্যাটারি নিয়ে থাকে তবে এটি নষ্ট হয়ে গেলে এটি প্রতিস্থাপনযোগ্য নাও হতে পারে। এর অর্থ ব্যাটারি নষ্ট হওয়ার পরে চার্জার ফ্যানের স্ট্যান্ডবাই কার্যক্ষমতা হারিয়ে যাবে।
সেরা মডেলগুলি হল স্ট্যান্ডার্ড ব্যাটারি (জেনেরিক ব্যাটারি) যা আপনি সহজেই স্থানীয় স্টোরগুলিতে কিনতে পারেন। এটি আপনাকে সহজে প্রতিস্থাপন ব্যাটারি খুঁজে পেতে পারেন তা নিশ্চিত করে।

4. কক্ষের আকার এবং মাত্রা
চার্জার ফ্যান কেনার আগে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা নেওয়ার বিষয়টি হল ফ্যানটি যে রুমে ব্যবহার করা হবে তার আকার এবং মাত্রা।
এটি আপনাকে কোন চার্জার ফ্যান কিনতে হবে তার ধরণ এবং এটি ঘরে কোথায় রাখা উচিত তা সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করে –
প্রধানত 2 ধরণের রিচার্জেযোগ্য ভক্ত রয়েছে:
স্থায়ী এবং সিলিংয়ের চার্জার ফ্যান। এছাড়াও পোর্টেবল চার্জার ফ্যান রয়েছে যা ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য কাজ করতে পারে।

5. ব্র্যান্ড নাম এবং খ্যাতি
প্রস্তুতকারকের নাম এবং খ্যাতি শীর্ষ মানের চার্জার ফ্যান কেনার জন্য আরেকটি প্যারামিটার। দেশে, রিচার্জেবল ফ্যান শিল্পের জনপ্রিয় ব্র্যান্ডগুলির মধ্যে রয়েছে উকা, কিউএসএ, লন্টর, ওএক্স, ইউনিভার্সাল, জেনেরিক, সোনিটেক ইত্যাদি অন্যান্য লক্ষণীয় কারণগুলির মধ্যে ফ্যানের আকার অন্তর্ভুক্ত; নকশা; চার্জিংয়ের মোড (বিদ্যুত বা সৌর)।

Lip life in this heat. The body of the fan is covered with a little air. That benefit is also sometimes not available. Load shedding also increases with the heat. Various types of rechargeable lights and fans have been blessed again to get rid of the problem. Which is known as ‘charger light or fan’.

Customers are in high demand for rechargeable fan-lights at this time of year. Most of these electrical products are made in China. Besides, various products made in Malaysia, Hong Kong, and Taiwan will also be available. You will find products of Nova, Sachi, Osaka, Green Power, Daylight, Nistrol bands in the market. Small rechargeable fans will be available at electronics stores in the new market and online shopping malls at today’s deals for taka 800 to taka 1,500.

The big fans will be available at Taka 1,600 to Taka 4,000. And the price will be a little higher in big shopping malls. The price of the fan will be two and a half thousand to five thousand rupees. These also have various facilities. If you want, you can buy a remote control fan and light. In this case, however, some additional cost must be added to the original price.

How to use: Some care must be taken to use the charger fan or light for a long time. After buying a charger fan or light, you have to charge it continuously for 12 to 16 hours and then use it. However, after that, when the charge is over, you have to charge for two to three hours. It is not advisable to keep the charger light or fan plugged in all day. In the case of a charger fan, if the battery is damaged, a new battery can be bought and connected for taka 200 to 300. And in the case of charger lights, it is better to buy energy-saving lights.

Where to get: If you want to buy a charger fan or light at a relatively low price, you can visit the shops on Nawabpur Road in Old Dhaka. Besides, attractive charger lights and fans of different models will be available in almost all the small and big electronics stores of the country including Boshundhara City, New Market, Mouchak Market, and Stadium Market.

Want to buy a charger fan for 200 takas or a solar light for 300 takas? But you have to go to the computer product store at the Multiplan Center on Elephant Road in the capital. There are various technology products available at low prices. Products that will meet your daily needs. The heat will give relief. Light in the dark.

On Sunday, the ECS City Center of the Multiplan Center was visited and shoppers were seen buying computers, laptops as well as small products like charger fans, chargers, lights, virtual reality headsets. Vendors said demand for USB charger fans and lights has increased in the heat.

Sujit Mitra, branch manager of Ponnobd Electronics Limited, told us, “Load shedding has increased in the summer. As a result, many are looking for a charger fan or light. Those who can’t afford to buy a charger fan at a higher price, they are buying a small size USB charger fan. This fan can give air charge during load shedding as well as charge the phone. Because it has a rechargeable battery and a USB port. This fan can be charged with a normal phone charger.

The price of this charger fan is also different depending on the quality. The price depends on the capacity of the battery. Charger fans that have phone chargers are priced at taka 250 to taka 300. There is no facility to charge the phone with a charger fan priced at taka 200.

Mukit came to the Multiplan Center to repair a broken laptop. Put him in different shops and see the small-size charger fan and get excited. Also bought the desired one. Mukit told us that this fan will give some relief during load shedding. So I bought it. ‘

Meanwhile, solar charger lights are available in the same market. These lights are selling well at this time of summer. Getting rid of the gloomy darkness during load shedding. On the other hand, this light does not need to be charged by consuming electricity. It should be left on the veranda or near the window during the day. The solar panel will charge the battery by collecting energy from the sun. And so the light will shine. It can also be used as a torch. The price is only 300 taka.

Solar lights are being sold in several shops. But if you want to see it in detail, you have to go to Solar Soft.  Md. Raquibul Islam Rakib, the head of the company, told us that many people are looking for charger lights to get light during load shedding at night. However, the demand for solar charger lights is high. Because there is no cost to pay the charge. On the other hand, it can also be used during camping.

The virtual world of this age of smartphones seems to be calling. To get a taste of the virtual world, you must have access to virtual reality headsets. Because now you are going to enjoy 3D movies or games with a VR headset. This VR is available in Multiplan stores. Prices are also within reach. Only the seller is raising the price to 300 takas. This technology product can be bought at a lower price if you buy at a lower price.

No matter how much the mobile phone is decorated on the palm of the hand, many people now wear smartwatches on the wrist. Although the price of smartwatch is skyrocketing, low priced smartwatch is available in this market. It can be bought for only 900 taka. The Bluetooth smartwatch has the opportunity to use a SIM. As a result, calls and messages can be exchanged with the watch.

Many people do not have a selfie flash on their phone. As a result, it is not possible to take good selfies on these phones in low light or at night. To solve this problem you can use a selfie flashgun on the phone. It can fit on the 3.5mm audio jack of your phone. It costs only 100 taka. It is available at various computer accessories products stores at the Multiplan Center.

এসি কেনার আগে জরুরী কিছু তথ্য

প্রায় বসন্ত শেষ হওয়ার সময়্‌, গরম এলো বলে। গ্রীষ্ম তার অনেক গরম নিয়ে আসার আগেই বেশ গরম পড়তে শুরু করেছে । এই গ্রীষ্মের প্রচন্ড দাবদাহ আর ভ্যাপসা একটা গরম আবহাওয়া, আমাদের সহ্যের সীমা মাঝে মাঝে ছাড়িয়ে যায়। এরকম অসহ্য গরমে একটু স্বস্তি পাওয়ার জন্য আমরা যদি একটা এসি কিনার কথা চিন্তা করি তবে আইডিয়াটা খুব একটা খারাপ না। আপনি যদি টাকা নিয়ে কাছের কোনো ইলেকট্রনিক্স দোকানে যাওয়ার আগে অবশ্যই আপনার এসি সম্পর্কে ন্যূনতম কিছু বিষয় জেনে রাখলে ভালো হয় , কারন এসি কেনার সময় আপনি এতো কোম্পানির আলাদা আলাদা মডেল দেখে  হয়ত বুঝেই উঠতে পারবেন না কোন মডেল কেনা আপনার জন্য জরুরি। এসি কেনার আগে দেখে নিন কোন বিষয়গুলো মনে রাখা আপনার জন্য দরকার…
এসি কাজ করে কীভাবে ?

আসলে আমরা কনফিউশন নিয়ে যেমনটা চিন্তা করি, এসির চালানো ও কাজ করার ধরণ বলতে গেলে তার চেয়েও অনেক সহজ। এক কথায় বলতে গেলে এসি ১টি রুমের ভিতর থেকে বাতাস টেনে নেয়, পরে ওই বাতাসকে একটি ইভাপোরেটর (evaporator) বা বাষ্পীভবন যন্ত্রের মধ্যে দিয়ে চালিয়ে বাতাসটিকে ঠান্ডা করে এবং সবশেষে ঠান্ডা বাতাসগুলো পরিমাণ মত রুমে ছেড়ে দেয়।

অনেক মানুষের মধ্যেই একটি ভুল ধারণা আছে যে এয়ার কন্ডিশনার রুমের বাইরের থেকে বাতাস টেনে আনে, কিন্তু সত্যি বলতে গেলে একটি এয়ার কন্ডিশনার সব সময় শুধুমাত্র ঘরের ভেতরের বাতাস নিয়ে কাজ করে থাকে। একটি এয়ার কন্ডিশনার এ ইভাপোরেটর (evaporator) এর পাশাপাশি থাকে কম্প্রেসার (compressor) , যেখানে কুলিং (cooling) গ্যাসটিকে ঠান্ডা করে দেয় , আর এই ঠান্ডা কুলিং গ্যাসটিই পরে রুমের ভেতর থেকে নেয়া গরম বাতাসকে ঠান্ডা করে।

ইনভার্টার (inverter) কিনবেন নাকি নন ইনভার্টার (non inverter)?

এসি কেনার আগে জরুরী কিছু তথ্য 2

বিজ্ঞানীরা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন প্রযুক্তির আবিষ্কারের সাথে সাথে আমরা দৈনন্দিন ব্যবহারের ইলেক্ট্রিক্যাল জিনিসে আরো উন্নত সুযোগ সুবিধা পাচ্ছি । বর্তমান সময়ে নতুন ইনভার্টার (inverter) এসিগুলো বাজারে খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আর সেই সাথে সেগুলো বহুল প্রচলিত নন ইনভার্টার (non inverter) এসিগুলোর থেকে ঠিক কতটা ভালো বা উন্নত সেই প্রশ্নও সাধারন ভাবে আমাদের সবার মনেই উঠে আসে। তাহলে চলুন জানি এই সম্পর্কেঃ

একটি নন ইনভার্টার (non inverter) এসিতে এর কম্প্রেসার (compressor) টি একটি নির্দিষ্ট গতিতে চলতে থাকে, এর মানে এই যে কম্প্রেসার(compressor) টি যদি আমরা চালু রেখে দেই রুমের ভেতরের তাপমাত্রা ক্রমাগত শুধু কমতেই থাকবে। কিন্তু যে ব্যবহার করবে তার পছন্দ অনুযায়ী যদি নির্ধারণ করা হয় তাপমাত্রা ধরে রাখার জন্য, তখন এসিটি ঠান্ডা হয়ে কিছুটা বেশি হয়ে গেলেই এর কম্প্রেসার (compressor) টি বন্ধ করে দেয়, আবার রুমে গরম কিছুটা বেড়ে গেলে আবার কম্প্রেসার (compressor) টি কে চালু করে দেয়। এই অটো অন অফ হওয়ার পদ্ধতি পুরোপুরি একজন ব্যবহারকারীর সেটিংস বা নির্ধারিত তাপমাত্রার উপর নির্ভর করে।

অপর দিকে একটি ইনভার্টার (inverter)  এসিতে এর কম্প্রেসার (compressor) যতক্ষণ চালু থাকে সবসময় চলতেই থাকবে, আর পছন্দের তাপমাত্রা ধরে রাখার জন্য কম্প্রেসার(compressor)টি সম্পূর্ণ অফ না করে দিয়ে এসিটির তাপমাত্রা ধীরে ধীরে বাড়াতে বা কমাতে হবে । বলতে গেলে রুমে একদম পারফেক্ট ভাবে একই তাপমাত্রা বজায় রাখার জন্য ইনভার্টার (inverter) এসিগুলোই সবচেয়ে বেশি ভালো কাজ করে। আর সেজন্যই রুমের তাপমাত্রার সামান্যতম পরিবর্তনেই যেসব ব্যক্তিদের সমস্যা হয়, তাদের জন্যও ইনভার্টার (inverter) এসিই সবথেকে সেরা। আর কয়েক মিনিট পর পর যদি আপনি একটি শক্তিশালী কম্প্রেসার(compressor) কে সম্পূর্ণ বন্ধ ও চালু করার প্রয়োজন না পরে তখন এই এসি গুলো অনেক কম বিদ্যুৎ খরচ করে থাকে।

দু ধরণের এসির মধ্যে নিচের তুলনামূলক তালিকাটি দেখুন ।

ইনভার্টার এসিঃ

সুবিধাঅসুবিধা
ইনভার্টার এসি পরিবেশ বান্ধবইনভার্টার এসি এনার্জি বা শক্তি বাঁচানোর জন্য ধীরগতিতে ঠান্ডা

করে।

ইনভার্টার এসি অল্প বিদ্যুৎ ব্যবহার করে বলে ব্যবহারের খরচ অনেক কমে যায়।ইনভার্টার এসি মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণে তুলনামূলক ভাবে অনেক

বেশি খরচ হয়।

ইনভার্টার এসি শব্দ হয় খুবই কম নয়ত একেবারেই নিঃশব্দ।ইনভার্টার এসির দাম নন ইনভার্টার এসির সাথে যদি আমরা তুলনা করি, তাহলে দেখতে পাবো যে, এদের দামও

অনেক বেশি।

ইনভার্টার এসির কার্যকরী কুলিং (ঠান্ডা) / হিটিং (গরম)
ইনভার্টার এসি কম্প্রেসার(compressor) এর জন্য বাসার বিদ্যুৎ সংযোগে কোন ভোল্টেজের তারতম্য ঘটে না।
ইনভার্টার এসি সোলার প্যানেলের সাহায্যে চালানো সম্ভব।

 

নন ইনভার্টার এসি

সুবিধা অসুবিধা
নন ইনভার্টার এসি অতিরিক্ত গরম আবহাওয়ার জন্য বেশি উপযুক্ত ও কার্যকরী।নন ইনভার্টার এসি অধিক শক্তি খরচ করে এবং ইলেকট্রিক বিলও       বেশি আসে,তাই ব্যবহার করা বেশ ব্যয়বহুল।
নন ইনভার্টার এসি দ্রুততর কুলিং সিস্টেম।নন ইনভার্টার এসি চলার সময় বেশ শব্দ করে।
নন ইনভার্টার এসি বড় রুমের জন্য তুলনামূলক ভাবে ভালো।
নন ইনভার্টার এসি ইনভার্টার এসির তুলনায় এদের দাম বেশ কম।

স্প্লিট এসি (split ac) কিনবেন নাকি  উইন্ডো এসি (window ac) ?

এসি কেনার আগে প্রথম প্রশ্ন যেটি মাথায় আসে তা হল স্প্লিট এসি (split ac)  নাকি উইন্ডো এসি (window ac)? উইন্ডো এসি (window ac) তে বন্ধ হয়ে যাবে আপনার একটি জানলা। আর এসি বন্ধ থাকলে ঘরে আলো ঢোকার সম্ভবনা কমে যাবে। অন্যদিকে স্প্লিট এসি (split ac) তে কম্প্রেসার(compressor) টি থাকবে ঘরের বাইরে। তাই ঘরে আমাদের পছন্দমত জায়গায় এই এসি সেট করে নিতে পারবো। কিন্তু একটা বিষয় আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে, কমপ্রেশার এর সাথে সংযোগ দেয়ার জন্য আমাদের বাসার দেয়ালে ছোট একটি গর্ত করার প্রয়োজন পড়তে পারে । এছাড়াও  যেহেতু স্প্লিট এসি (split ac) তে কম্প্রেসার(compressor) টি ঘরের বাইরে থাকে তাই আওয়াজ অনেক কম হয় স্প্লিট এসি (split ac) তে। যদিও দামের দিক থেকে উইন্ডো এসি (window ac) দাম স্প্লিট এসি (split ac)  থেকে খানিকটা কম।

BEE (Bureau of Energy Efficiency) স্টার রেটিং
এসি কেনার আগে আর একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার BEE (Bureau of Energy Efficiency)  স্টার রেটিং। কোন ইলেকট্রিকাল ডিভাইস কতো বিদ্যুত ব্যবহার করে তা বিচার হয় এই BEE (Bureau of Energy Efficiency)  স্টার রেটিং দিয়ে।

১ স্টার ডিভাইস এক বছরে ব্যবহার করে ৮৪৩ ইউনিট অন্যদিকে ৫ স্টার ডিভাইস ব্যবহার করে ৫৫৪ ইউনিট। এখানে মাথায় রাখা প্রয়োজন স্টার রেটিং ক্রমশ বদলাতে থাকে। ২০১৬ সালে যে এসিটি ৫ স্টার ছিল এখন ২০১৮ সালে তা ৩ স্টার এসি।

সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় ওয়াশিং মেশিনের বৈশিষ্ট্যগুলি কী কী?

ওয়াশিং মেশিন কেনা তত সহজ নয় যতটা মনে হয়। বাজারে বিভিন্ন ধরণের ওয়াশিং মেশিন রয়েছে এবং যখন আপনাকে সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয়, আধা-স্বয়ংক্রিয়, বেশী লোড এবং ফ্রন্ট লোড ওয়াশিং মেশিনগুলি বেছে নিতে হয় তখন আপনার নিখুঁত লন্ড্রি মেশিনটি বেছে নেওয়া আরও বেশি কঠিন হয়ে যায়। তাই ওয়াশিং মেশিন কেনার আগে এই বস্তুটি সম্পর্কে খুব ভালো ভাবে জেনে নিতে হবে। কোনটা ভালো আর কোনটা কি কাজ করে।

সঠিক ওয়াশার বাছাইয়ের বিষয়টি যখন আসে তখন আপনাকে নিম্নলিখিতগুলি বিবেচনা করতে হবে:

কার্যকারিতাঃ ওয়াশিং মেশিনে আপনার পছন্দমত ও প্রয়োজনীয় সমস্ত বৈশিষ্ট্য আছে কি না তা দেখা এবং সব ফাংশনের কার্যকারিতা দেখা আবশ্যক।

বাজেটঃ ওয়াশিং মেশিন খুবই ব্যয়বহুল একটি পণ্য। এই পণ্যটির বাজেট নির্ভর করে এটির ফিচারস, মেকিংস এবং মডেলের উপর। তাই বাজেটের মধ্যে সঠিক মডেলের ওয়াশিং মেশিন পছন্দ করাটা আপনার জন্য খুবই জরুরী।

লোডিং ক্যাপাসিটিঃ ওয়াশিং মেশিন ক্রয় করার পূর্বে আপনাকে মেশিনের লোডিং ক্ষমতা পরীক্ষা করতে হবে। আপনার পরিবারের যদি অনেক সদস্য থাকে অথবা আপনারা যদি একান্নবর্তী পরিবারে বাস করেন তবে আপনার কমপক্ষে 20 কেজি বা তার বেশী ওয়াশিং মেশিনের প্রয়োজন হবে, 10 কেজি ধারণক্ষমতা সম্পন্ন একটি মেশিনটি আপনার কাজের চাপ নিতে পারবে না।

লোডিং অপশনঃ সম্পূর্ণরূপে স্বয়ংক্রিয় মেশিন নামটি যা বলে তা করে – এগুলি অনেকগুলি প্রোগ্রাম এবং লন্ড্রি মোডের সাথে সেটকরা থাকে যা বোতামের ধাক্কায় কাজ করে। মেশিনটি আপনার পক্ষ থেকে কোনও হস্তক্ষেপ ছাড়াই যান্ত্রিকভাবে সমস্ত কিছু করে, যার অর্থ, আপনাকে যা করতে হবে অর্থাৎ কাপড় শুধু মেশিনে দিতে হবে এরপর একটি বাটন ক্লিক করলেই হবে এবং আটোমেটিক ভাবে মেশিন আপনার কোনো হস্তক্ষেপ ছাড়াই কাজ করবে। আপনার কাপড় হবে পরিষ্কার এবং ফ্রেশ।

সিঙ্গেল মটরঃ সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় ওয়াশিং মেশিনগুলির একটি সিঙ্গেল মোটর রয়েছে যা সমস্ত ওয়াশিং এর কাজ এবং শুকানোর কার্যকারিতা দক্ষতার সাথে করে। কোনও ম্যানুয়াল হস্তক্ষেপের সাহায্য ছাড়াই মেশিনটি সমস্ত কাজ নিজেই করে।

অ্যাজিটেটরসঃ এগুলি এমন ডিভাইস যা সহজেই কাপড়কে দ্রুত গতিতে চালিত করতে পারে। তাদের পাখার সাথে একটি বাটন রয়েছে যা ড্রামের নীচ থেকে প্রসারিত হয় এবং কাপড়টিকে চারপাশে সরিয়ে দেয়। এই অ্যাজিটেটরস নিশ্চিত করে যে আপনার জামাকাপড় মুহূর্তের মধ্যে পরিষ্কার ও কড়করে হয়ে যায়।

ইম্পেলারসঃ ওয়াশিং মেশিনগুলির নীচে প্রোপেলার রয়েছে যা কাপড়টি সরানোর জন্য পানিকে আলোড়িত করে। এই নিম্ন-প্রোফাইল ঘোরানো হাব ওয়াশ জলে অশান্ত স্রোত তৈরি করে যেহেতু ইমপ্লেলার খুব দ্রুত ঘোরায়। এই স্রোতগুলি জলের মধ্য দিয়ে কাপড় সরিয়ে দেয় এবং আপনার কোনো প্রকার হস্তক্ষেপ ছাড়াই ইম্পেলারস আপনার কাপড় পরিষ্কার করে দেয়।

What are the features of a fully automatic washing machine?

Buying a washing machine is not as easy as it may seem. There are different types of washing machines on the market and when you have to choose fully automatic, semi-automatic, overloaded, and front-loaded washing machines it becomes more difficult to choose your perfect laundry machine. So before buying a washing machine you need to know very well about this object. Which is better and which works.

When it comes to choosing the right washer, you need to consider the following:

Functionality: You need to see if the washing machine has all the features you want and need and see the functionality of all the functions.

Budget: A washing machine is a very expensive product. The budget of this product depends on its features, making, and model. So it is very important for you to choose the right model washing machine within the budget.

Loading Capacity: Before purchasing a washing machine, you need to check the loading capacity of the machine. If you have a lot of family members or if you live in a close-knit family, you will need at least 20 kg or more washing machine, a machine with a capacity of 10 kg will not be able to take your work pressure.

Loading Options: Fully automatic the machine does what the name says – these are set with many programs and laundry modes that work at the push of a button. The machine does everything mechanically without any interference on your part, which means, all you have to do is give the clothes to the machine then just click a button and the machine will work automatically without any intervention from you. Your clothes will be clean and fresh.

Single motor: Fully automatic washing machines have a single motor that does all the washing work and drying efficiency efficiently. The machine does all the work by itself without the help of any manual intervention.

Agitators: These are devices that can easily move clothes quickly. They have a button with a fan that extends from the bottom of the drum and moves the cloth around. These agitators ensure that your clothes become clean and crisp in no time.

Impellers: Washing machines have propellers at the bottom that flush the water to remove the fabric. This low-profile rotating hub creates turbulent currents in the wash water as the impeller rotates very quickly. These currents remove the cloth through the water and the impellers clean your cloth without any interference from you.

কিছু জিনিস যা কখনোই মাইক্রোওয়েভে রাখা বা প্রবেশ করানো উচিত নয়

মাইক্রোওয়েভ নিরাপত্তা মানে, নিম্নলিখিত জিনিসগুলো মাইক্রোওয়েভ থেকে দূরে রাখা উচিৎ তাতে করে দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা কমে যায়…

১/ কাগজের ব্যাগঃ
কাগজের ব্যাগগুলি বিষাক্ত টক্সিন নির্গত করে যার কারণে অতি সহজেই অগ্নিকান্ড ঘটতে পারে।

২/ টেক আউট কন্টেইনারঃ
টেক আউট কন্টেইনার এর ভিতর যদি কোনো প্রকার ধাতব পদার্থ থাকে তবে তা ওভেনের ভিতর রাখা ঠিক না কারন এতেও অগ্নিকান্ড ঘটতে পারে এবং এর ফলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

৩/ দই ও মাখনের ডিব্বাঃ
দই ও মাখনের কৌটা ওভেন প্রুফ করে বানানো হয়না তাই এই কৌটা ওভেনে প্রবেশ করানো ঠিক না। প্লাস্টিক হবার কারণে অধিক উত্তাপে এটি গলে যেতে পারে। ফলে প্লাস্টিক এর সকল টক্সিক আপনার খাবারে মিশে যেতে পারে।

৪/ ডিমঃ
আপনার যদি সিদ্ধ ডিম খেতে ইচ্ছে করে তবে তা চুলায় করাই ভালো কারন ওভেনে ডিম সিদ্ধ করতে গেলে উচ্চ তাপমাত্রায় পরে এটির বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। যা আপনাকে অধিক বিড়ম্বনায় ফেলবে।

৫/ স্টায়ারফোমঃ
স্টায়ারফোম এক ধরনের প্লাস্টিক জাতীয় দ্রব্য তাই এর তৈরি কাপ, বাটি বা কোনো ধরনের পাত্র ওভেনে প্রবেশ করানো ঠিক না কারন এটি তাপ সুপরিবাহি না।

৬/ আঙ্গুরঃ
অধিক তাপে আঙ্গুর বিস্ফোরিত হতে পারে এবং আগুনও ধরতে পারে।

৭/ মেটালের কুক ওয়্যারঃ
আবার বলছি মেটালের কোন জিনিস মাইক্রোওয়েবে প্রবেশ করানো যাবে না এতে বিস্ফোরণ হতে পারে।

৮/ কোনও আবরণ ছাড়াই সস বা সস জাতীয় জিনিস রাখাঃ
কোনও আবরণ বা ঢাকনা ছাড়াই মাইক্রোওয়েভের মধ্যে যে কোনও ধরণের সস বা সস এর মতো পাতলা জাতীয় কিছু ওভেনে প্রবেশ করানো যাবে না। অধিক তাপমাত্রার কারণে সস বাইরে বের হয়ে যেতে পারে যার ফলে বিশাল জগাখিচুড়ির সৃষ্টি হতে পারে।

৯/ প্লাস্টিক স্টোরেজ পাত্রেঃ
আপনার প্লাস্টিক স্টোরেজ পাত্রটি ওভেনে প্রবেশ করানোর জন্য নিরাপদ কিনা তা পাত্রের গায়ে লাগানো একটি লেবেলে লেখা থাকে। যদি ঐ লেবেলটি আপনি খুজে না পান তাহলে ঐ কোম্পানির ওয়েবসাইটে আপনি চেক করতে পারেন।

১০/ হট পেপারঃ
রান্নার প্রক্রিয়ার সময় উত্তাপের কারণে মরিচের ঝাজালো ধোয়ায় আপনার চোখ জলতে পারে। রান্নার সময় যে রাসায়নিক ধোয়া নির্গত হয় তা ওভেনের দরজা খোলার সময় সরাসরি আপনার চোখে চলে যেতে পারে।

১১/ স্টেইনলেস স্টিল ভ্রমণ মগ / বোতলঃ
অনেক লোক মাইক্রোওয়েভ ভ্রমন মগ কোনগুলি তা বুঝতে পারেন না। তারা কোন ভাবেই এটা অনুভব করতে ভারে না যে মগটি স্টিলের তৈরি যা ওভেনের জন্য একদমই ঠিক নয়। এই ধরনের মগ মাইক্রোওভেন নষ্ট করেও ফেলতে পারে।

১২/ ফ্রোজেন মাংসঃ
হিমায়িত মাংস মাইক্রোওয়েভ রান্না করতে পারে না। মাংস কতটা রান্না হবে তা নির্ভর করে মাংসের পুরুত্তের উপর। মাংসের ভিতর যদি পরিপূর্ণভাবে তাপ প্রবাহিত না হয় তবে রান্না ভালো হবে না র মাংসের ব্যাকটেরিয়া গুলোর সঠিক নিধন হবে না।

১৩/ অ্যালুমিনিয়াম ফয়েলঃ
এটা একটা ধাতু। আপনি যদি আপনার খাবার গরম করতে চান এবং খাবারটি যদি অ্যালুমিনিয়াম ফয়েলে মোড়ানো থাকে তবে আপনার মাইক্রোওভেনে খাবারটি প্রবেশ করানোর পূর্বে ফয়েলটি খুলে ফেলুন নতুবা অতি উত্তাপে ফয়েলে আগুন ধরে যেতে পারে।

১৪/ ফাঁকা অবস্থাঃ
মাইক্রোওয়েভে যদি কিছু না থাকে রান্না বা গরম করার জন্য কিন্তু তবুও পাওয়ার অন করা থাকে তাহলেও মাইক্রোওয়েভে আগুন ধরে যেতে পারে এমনকি বিস্ফোরণও হতে পারে।

চূড়ান্ত চিন্তাঃ
আমরা সম্ভবত আমাদের মাইক্রোওয়েভকে প্রচলিত চুলা বা চুলার চেয়ে নিরাপদ রান্নার সরঞ্জাম হিসাবে ভেবে থাকি। যদিও এটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সত্য কিন্তু সাবধানতা অবলম্বন করা এবং মাইক্রোওয়েভের মধ্যে কী কী থাকে বা কি কি থাকে না এবং সেগুলো কী তা মনে রেখে কাজ করতে হবে। রান্নাঘরে এমন কোন জিনিসগুলি রয়েছে যা মাইক্রোওয়েভের সংস্পর্শে আসলে আগুন ধরতে পারে বা বিস্ফোরণ ঘটতে পারে সেই জিনিসগুলোকে সাবধানে রাখতে হবে। মাইক্রোওয়েভ সর্বদা পরিষ্কার রাখতে হবে।

সার্ভিস সমাধানঃ
মাইক্রোওয়েভ নিয়ে সমস্যায় পড়লে বা নষ্ট হলে কোন চিন্তা নেই। ইলেক্ট্রনিক্স সব জিনিস সংক্রান্ত যে কোনো সমস্যার সমাধান নিয়ে চলে এলো “সার্ভিস বাড়ি” ডট কম ( www.servicebari.com )।

Microwave safety means keeping these items out of your microwave so that it will be safe and long-lasting…

1/ Paper Bag:
Paper bags emit toxic toxins that can easily cause a fire. So we should keep away from our microwave to keep it safe.

2 / Take out Container:
If there is any metal inside the take out container, it is not advisable to keep it inside the oven as it can also cause fire and cause serious damage.

3 / Cans of Yogurt and Butter:
Yogurt and butter cans are not oven-proof so it is not advisable to put these cans in the oven. Being plastic, it can melt in high heat. As a result, all the toxins of plastic can be mixed in your food.

4 / Eggs:
If you want to eat boiled eggs, it is better to put them in the oven because boiling eggs in the oven can cause them to explode later at high temperatures. Which will make you more embarrassed.

5 / Styrofoam:
Styrofoam is a type of plastic product so it is not advisable to put cups, bowls, or utensils in the oven because it is not a conductor of heat.

6 / Grapes:
Excessive heat can cause the grapes to explode and catch fire.

7 / Metal Cook Wire:
Again, nothing metal can be inserted into the microwave, it can explode.

8 / Putting Sauce
without Any Cover: In the microwave without any cover or lid, it is not possible to put any kind of thin or any kind of sauce or sauce in the oven. Excessive temperatures can cause the sauce to leak out, causing a huge mess.

9 / Plastic Storage Containers:
Whether your plastic storage container is safe to put in the oven is written on a label attached to the container. If you can’t find that label, you can check the company’s website.

10 / Hot Paper:
Heat during the cooking process can cause your eyes to burn from the hot wash of the pepper. The chemical fumes that are emitted during cooking can go directly into your eyes when you open the oven door.

11 / Stainless Steel Travel Mug / Bottle:
Many people do not understand what microwave travel mugs are. By no means do they want to convey that they recommend for the oven to be made of steel? This type of mug can also ruin the
microwave.

12 / Frozen Meat:
Frozen meat cannot cook in the microwave. How much meat will be cooked depends on the thickness of the meat? If there is not enough heat flowing inside the meat, cooking will not be good and the bacteria in the meat will not be killed properly.

13 / Aluminum Foil:
It is a metal. If you want to heat your food and if the food is wrapped in aluminum foil, remove the foil before inserting the food into your microwave or the foil may catch fire in extreme heat.

14 / Empty Condition:
If there is nothing in the microwave to cook or heat but still have the power turned on, the microwave can catch fire and even explode.

The Final Thought:
We probably think of our microwave as a safer cooking tool than a conventional oven or stove. While this is true in most cases, care must be taken to remember what is and what is not in the microwave and what they are. There are things in the kitchen that could actually catch fire or explode on contact with the microwave, so be careful. The microwave should always be kept clean.

Service Solution:
No worries if the microwave gets in trouble or breaks down. Electronics has come up with a solution to any problem related to all things “Service Bari” dot com (www.servicebari.com ).

ওয়াশিং মেশিন যেভাবে পরিষ্কার করবেন How to Clean Washing Machine

আজ আমি আপনাদের বলব কিভাবে আপনারা আপনাদের ওয়াশিং মেশিনকে সঠিকভাবে পরিষ্কার করবেন এবং কীভাবে এটির পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা যায় সে সম্পর্কে আপনাদের বলতে যাচ্ছি যাতে এটি আপনার কাপড় পরিস্কারের মতো কঠিন কাজটি সহজ করে আপনার ঘরে একটি সুন্দর দীর্ঘ সময় ধরে টিকে থাকতে পারে।

আপনারা প্রায়ই এই জাতীয় পরিষ্কারের ফ্রিকোয়েন্সি জিজ্ঞাসা করেন এবং আমি মনে করি এটি সম্পূর্ণরূপে আপনি আপনার মেশিনটি কীভাবে ব্যবহার করছেন তার উপর নির্ভর করে এবং এটি আপনার পরিবারে কতজন লোক এবং আপনি কত পরিমানে কাপড় পরিষ্কার করেন সপ্তাহে তার উপর। আপনি যদি কোনও একক ব্যক্তি বা আপনার বাসায় দু’জন বাস করে থাকেন তবে আপনাকে সম্ভবত কম কাপড় পরিষ্কার করতে হয় তিন, চার বা সাত জনের পরিবার থেকে। তবে মনে রাখতে হবে যে আপনি যদি প্রচুর কাপড় পরিষ্কার করে থাকেন তবে আপনার ওয়াশিং মেশিনটি মাসে একবার পরিষ্কার করা উচিৎ।

প্রথমে আমাদের যেটা করতে হবে সেটা হোল ওয়াশিং মেশিন থেকে সব কাপড় বের করে নিতে হবে। এরপর দুটি একটি পাত্রে কিছুটা বেকিং সোডা ও কিছুটা পানি মিশ্রিত করে একটি পেস্ট তৈরি করতে হবে। একটি স্ক্রাবারের সাহায্যে ড্রামের ভিতরের অংশটা ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। প্রথমবার পরিষ্কার করার পর ঐ একই ভাবে দ্বিতীয়বার আবার পরিষ্কার করতে হবে।

এরপর যেটি করতে হবে সেটা হোলো একটি পাত্রে এক কাপ পরিমান ভিনেগার এবং তার বিতর চাইলে ১০ ফোটা চা গাছের তেল ব্যবহার করতে পারেন। ভিনেগার আপনার মেশিনের ব্যাকটেরিয়া মারতে সহয়তা করে। আর চায়ের তেল একটা সুন্দর গন্ধ ছড়ায়।

কাপড় পরিষ্কার করার কারণে আপনার ওয়াসিং মেশিনের গ্যাস্কেটি ময়লা হয়ে যায়। তৈরি করা প্রথম পেস্টটি দিয়ে আপনারা আপনাদের মেশিনটির গ্যাস্কেট পরিষ্কার করতে পারেন। যদি আপনার গ্যাস্কেট এর অবস্থা ভালো থাকে তাহলে আপনি ভিনেগার ও সাবান পানি দিয়েই এই গ্যাস্কেটি পরিষ্কার করতে পারেন কিন্তু যদি আপনার গ্যাস্কেট এর অবস্থা ভালো না থাকে তাহলে আমি পরামর্শ দিব আপনি এটি নিজে না করে একজন টেকনিশিয়ানকে দিয়ে সার্ভিস করিয়ে নিতে পারেন। তাতে করে আপনার ওয়াসিং মেশিনটি নষ্ট হবার ভয় থাকবে না। এক্ষেত্রে আপনারা চাইলে “সার্ভিস বাড়ী” “Servicebari.com” এর সহয়তা নিতে পারেন।

এরপর সাবান পানিতে একটি কাপড় ভিজিয়ে মেশিনের উপরিভাগটা খুব ভালো ভাবে মুছে ফেলতে হবে। মেশিনের উপরিভাগে যদি বেসি ময়লা না থাকে, শুধু ধুলা বালি থাকে তাহলে একটা শুকনা কাপড় দিয়েই পরিষ্কার করা ভালো।

একটা জায়গা যার কথা আমরা প্রায় সময়ই ভুলে যাই পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে সেটা হোলো ডিটারজেন্ট ট্রে এর কথা। এই জায়গাটাই ব্যাকটেরিয়া জন্মাবার সবথেকে ভালো জায়গা কারন এই স্থানে সবসময় একটা স্যাঁতস্যাঁতে ভাব থাকে। সুতরাং এই জায়গাটাকে খুব ভালোভাবে পরিষ্কার করা অতি জরুরী।

Today I’m going to tell you about how to properly clean and deodorize your washing machine and how to maintain it so that it can live a nice long fruitful life in your home doing your dirty work.

Frequency:
People often ask the frequency of doing this particular type of cleaning and I think it entirely depends on how frequently you’re using your machine and that would be dictated by how many people are in your family and approximately how many loads of laundry you do a week. If you are a single person or two of you living in a home, you are probably doing less laundry then a family of three, four or seven. So just keep that in mind, if you do a lot of laundry, say a load a day. You might want to consider doing this once a month but if you are doing one or two loads a week, you can probably get away with doing this once a quarter.

First Step:
The way that I want you to start is like this take everything out of the washing machine. you want an empty drum and you’re going to create a pest with two parts baking soda and one part water. Now the reason I like this pest is because baking soda is our friend a little bit gritty. So it’s going to help remove any of that buildup that could be stuck on the drum. Baking soda is also great at deodorizing and we know that the inside of a washing machine drum can be a little bit on the side all right. So we are going to take that solution, dip a sponge into it and start to just gently apply it and scrub the inside of the drum. This shouldn’t take very long I know. It sounds laborious but it actually can quite quickly, so you are just going to work your way around the drum and I would just spin it and scrub. Once that’s done you’re going to take a microfiber cloth, get it nice and wet and start to wipe out the baking soda. so again just give it a good spin like you’re on the price is right give it a wipe spin again wipe and make sure that all that baking soda or as much as possible is out.

Second Step:
the second step is to take a cup of white vinegar and to it, you’re going to add 10 drops of tea tree essential oil. This is a great and powerful combination. The vinegar is going to help break down soaps gum and odors and the tree essential oil is great at tackling mold and mildew and odor causing bacteria. So throw those two things. Don’t throw them gently, pour them into the detergent tray and set your cycle for the hottest possible cycle or the tub clean cycle either is going to work and they should essentially do the same thing by the time that is done. Your machine is going to be not only visually sparkling but should smell a lot better and the thing I love most is when something has been cleaned and it smells like nothing. Now there are products that you can buy that would shorten you from having to do the DIY version.

Third Step:
You know what it feels like it’s warm, it’s rubbery and it’s a little bit slimy. It’s your washing machine gasket and it gets disgusting. It’s important to stay on top of keeping this clean because I’ve got to tell you that’s like the epicenter of odors in your washing machine. So there are some ways available. We’ll talk about the actual cleaning and then we’ll talk about the maintenance if you want to clean it and if it’s not in dire condition. What you can do is make a solution with equal parts dish soap and vinegar to that solution add 10 drops of tea tree essential oil for reasons previously mentioned: mix that all up, get a soft sponge and apply it to the outside and inside of the gasket. you’ve really got to get your hand and your sponge in there you want to kind of agitate it and scrub it around and this is going to help break down any of that odor-causing bacteria and that buildup that just kind of gets trapped in the gasket over time now. When that’s done take a microfiber cloth soaked in water and give it a really good rinse just to get rid of any of that suds and any of the remaining vinegar.

Service:
Now if you’re a gasket really has seen better days and you think that it’s beyond repair. It’s worth replacing now. You can find videos online on how to do it yourself. I always feel like when it comes to something like an appliance or something expensive rather than trying to jimmy rig it, I would much prefer bringing a professional and letting them do it. We actually looked into it there and there’s quite a bit of work that you have to do to replace the gasket. you have to remove several parts of the machine and the thing I always worry about is potentially voiding the warranty. So here’s what I’ll tell you, your machine cost several money. It’s probably gonna cost some more to replace the gasket. You might as well just bring in a pro and let them do it the right way. If it’s being so difficult to you then don’t worry SERVICE BARI provide all the service related TV, AC, Washing Machine, Fridge, Microwave and other electronics home appliances. www.servicebari.com

The Exterior:
Maintaining the exterior of the washing machine is a breeze. You can use an all-purpose cleaner and a microfiber cloth. Give it a good wipe down the thing I’ve found over the years cleaning hundreds of places and hundreds of laundry rooms. You get a lot of soap residue and it’s just because you know you’re pouring soap that spills a big deal. you kind of move on with your day but over time it builds up so the best thing you can do is just take a dump cloth, give it a wipe, a couple scrubs and it should be gone. If you notice any detergent caught in buttons or wheels you can just use a cleaning toothbrush that’s slightly depended, give it a little bit of a scrub and wipe it down.

Detergent Tray:
An area which we often forget to clean but that really needs attention is the detergent tray and here’s the reason soap freed bacteria a nice dark damp environment. Which is where your detergent trey is quite literally is the perfect breeding ground for that odor causing bacteria and other moldy buildup that you can experience in your machine. That’s why it’s so important to remove it and give it a good cleaning. Now the exact same solution we use for the gasket is going to be perfect for cleaning your detergent tray.

কীভাবে আপনার ডিপ ফ্রিজ পরিষ্কার করবেন 3

কীভাবে আপনার ডিপ ফ্রিজ পরিষ্কার করবেন

আমাদের দেশে সাধারণত ফ্রিজের পাশাপাশি ডিপ ফ্রিজ প্রায় অনেকের ঘরেই আছে। যদিও বেশিরভাগ লোকেরা ফ্রিজ পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে বেশ ভাল, তবে এটি সহজেই ভুলে যাওয়া যান যে ডিপ ফ্রিজেরও একটু নজর দেওয়া দরকার। যদি আপনি নিখুঁতভাবে এই কাজটি করার চিন্তাভাবনা করে থাকেন তবে এই লেখাটি আপনার জন্য।
ডিপফ্রিজ পরিষ্কার করতে গিয়ে আমরা নানা রকম ভুল কাজ করে থাকি, তাতে ডিপফ্রিজের ক্ষতি হয়ে থাকে। ডিপফ্রিজ পরিষ্কার করার কিছু নিয়ম রয়েছে। আসুন তাহলে আমরা জেনে নেই ডিপফ্রিজ পরিষ্কার করার সঠিক কিছু নিয়ম ।
সেজন্য আপনার যা প্রয়োজন হবে:

  • একটি নরম স্পঞ্জ
  • গরম পানি
  • ডিটারজেন্ট
  • একটি স্প্রে বোতল
  • মাইক্রোফাইবার কাপড়
  • পুরানো টুথব্রাশ

প্রথমে ডিপফ্রিজের বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে নিন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) জানিয়েছে যে আপনি যদি ফ্রিজের দরজা না খোলেন তবে বিদ্যুৎ ব্যতীত প্রায় চার ঘন্টা খাবার ঠাণ্ডা থাকবে। তবে এই কাজটি আপনার এক ঘন্টারও বেশি সময় নেয় না। আপনার ডিপফ্রিজ থেকে সমস্ত খাদ্য সরান এতে ডিপফ্রিজ ধোয়া অনেক সহজ হয়ে যাবে এবং আপনার ডিপফ্রিজের খাবারের মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখগুলি পরীক্ষা করতে একটু সময় নিন। যদি খাবারের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে থাকে তবে আইটেমটি বাদ করুন ।
কাঁচা মাছ, মাংস ডিপফ্রিজ থেকে বের করে একটি বালতিতে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন। এতে করে বরফ গলবে না, খাবার ভাল থাকবে । ডিপফ্রিজের বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা থাকলে খুব সহজেই আপনার ডিপফ্রিজ থেকে বরফ আলাদা হয়ে যাবে। এতে করে আপনার আর কষ্ট করে বরফ তুলতে হবে না। এবার আর একটি কাজ করুন,ডিপফ্রিজের ভিতরে যে তাকগুলো থাকে তা বের করে ফেলুন ।
আপনার স্প্রে বোতলে সমান অংশের ডিটারজেন্ট এবং গরম পানি মিশিয়ে নিন। এবার ডিপফ্রিজের তাকগুলো ডিটারজেন্ট মেশানো হালকা গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন আপনার ক্লিনারের সাহায্যে ফ্রিজারের অভ্যন্তর স্প্রে করুন এবংকিছুক্ষণ পর স্পঞ্জ দিয়ে ভালো করে দাগগুলো ঘষে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন একটি শুকনো মাইক্রোফাইবার কাপড় দিয়ে মুছুন । পুরাতন একটি টুথব্রাশ গরম পানিতে ডুবিয়ে রেখে পরে ডিপফ্রিজের রাবারগুলো ও কোনাগুলো ঘষে ঘষে পরিষ্কার করে নিন। পরিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত আলতো করে স্ক্রাব করুন এবং কোনাগুলো স্ক্রাব করুন যাতে ময়লা না থাকে এবার মাইক্রোফাইবার কাপড় দিয়ে মুছুন।
আপনার ডিপফ্রিজটি পরিষ্কার করার পর তাকগুলো সঠিক জায়গায় বসিয়ে দিন। কিন্তু খেয়াল রাখবেন তাকগুলো যেন শুকনো থাকে। ভেজা অবস্থায় তাকগুলো ডিপফ্রিজের ভিতর রাখবেন না।
পুরো ডিপফ্রিজ মুছে ফেলুন একটি তোয়ালে/ শুকনো মাইক্রোফাইবার কাপড় দিয়ে । ডিপফ্রিজ পরিষ্কার করা হয়ে গেলে খাবার ডিপফ্রিজে ভিতর তুলে রাখুন। তবে খাবারের প্রতিটা বক্স, প্যাকেট, বোতল কাপড় দিয়ে মুছে তারপর ফ্রিজে তুলে রাখবেন।

How to clean your deep freezer.
In our country, there are fridges as well as deep fridges in many homes. While most people are pretty well at cleaning the fridge, it’s easy to forget that the deep fridge also needs a little attention. If you are thinking of doing this perfectly then this article is for you.

When are we going to clean the deep freezer, we do various wrong things, which causes damage to the deep freezer. There are some rules for cleaning the deep freezer. Let’s find out now from some exact rules for cleaning a deep freezer.

That’s why you need:

  • A soft sponge
  • Hot water
  • Detergent
  • A spray bottle
  • Microfiber cloth
  • Old toothbrush

First, disconnect the deep freezer. The U.S. Food and Drug Administration (FDA) says that if you don’t open the fridge door, food will be cold for about four hours without electricity. However, this task does not take you more than an hour. Remove all food from your deep freeze This will make washing deepfreeze much easier and take some time to check the expiration dates of your deepfreeze food. If the meal has expired, skip the item.
Remove the raw fish, meat from the deep freezer and cover with a lid in a bucket. This will not melt the ice, the food will be good. If the electrical connection to the deep freezer is disconnected, the ice will easily separate from your deep freezer. This way you do not have to bother to lift the ice. Now do another thing, take out the shelves inside the deep freezer.
Mix equal parts of detergent and hot water in your spray bottle. Now soak the shelves of the deep freezer in lukewarm water mixed with detergent. Spray the inside of the freezer with your cleaner and after a while rub the stains well with a sponge and wash with water. Wipe with a dry microfiber cloth. Dip an old toothbrush in hot water and then wipe the rubber and corners of the deep freezer clean. Gently scrub until clean and scrub the corners, so that, there is no dirt. Now wipe with a microfiber cloth.
After cleaning your deep freezer, put the shelves in the right place. But make sure the shelves are dry. Do not keep shelves in the deep freezer when wet.
Wipe the entire deep freezer with a towel / dry microfiber cloth. Once the deep freezer has been cleaned, put the food inside the deep freezer. However, wipe every box, packet, bottle of food with a cloth , and then kept it in the fridge.

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 4

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture

হ্যালো ভিউয়ারস, সার্ভিস বাড়ী তে আপনাকে স্বাগতম , এখানে আপনারা আপনাদের যাবতীয় ইলেকট্রনিক্স জিনিসের সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন । Samsung, Walton, Pentanik , LG, ইত্যাদি নামিদামি ব্র্যান্ডের টিভি,এসি যে কোন ধরনের ইলেকট্রনিক্স জিনিস সার্ভিস করা হয় । সার্ভিস বাড়ী  আমাদের একটি সম্পূর্ণ দক্ষ টিম দ্বারা পরিচালিত । এখানে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স জিনিস যত্ন সহকারে সার্ভিস করা হয়।

আজ আমি আপনাদের একটি টিভি সার্ভিসিং দেখাবো ,

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 5

আমরা এখন যে টিভিটি দেখছি সে টিভিটির সমস্যা হল ছবি আসে না সাউন্ড আসে, কোন লাইট আসে না কিন্তু স্ক্রিনে টিভি টা চলছে ।

যেহেতু টিভি টা চলছে সেহেতু টিভিটির মাদারবোর্ডে সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা কম। এটা হতে পারে ইনভার্টার এর সমস্যা , বেকলাইটের  সমস্যা বা সফটওয়্যার জনিত সমস্যাও হতে পারে ।

এখন আমরা টিভিটা সম্পূর্ণ খুলে ফেলব ।

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 6

এখন বেকলাইটটি টেস্ট করবো। বেকলাইট টেস্টার দিয়ে,

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 7

আমরা দেখতে পাচ্ছি এখানে বেকলাইটের সমস্যা ।

সেজন্য, আমরা কয়েকটি  বেকলাইট রিপ্লেস করে নিব ।

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 8

ওকে আমাদের রিপ্লেস হয়ে গেছে ,

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 9

এখন আমরা টিভিটি নতুন করে ফিটিং করব ।

আমরা দেখতে পাচ্ছি টিভিটি এখন খুব সুন্দরভাবে চলছে

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 10

এবং ডিশ লাইন থেকে আমরা টিভিটি ক্লিয়ার ও খুব সুন্দরভাবে চলছে দেখতে পাচ্ছি।

LED TV Service Center Service Bari | TV Servicing | Backlight Problem | No Picture 11

 

Hello viewers, welcome to the service house, here you will find solutions to all your electronics problems. TVs, ACs of reputed brands like Samsung, Walton, Pentanik, LG, etc. are serviced for any type of electronics. Service House is managed by a completely skilled team of us. Here various electronics things are carefully serviced.
Today I will show you a TV servicing, the problem of the TV we are watching now is that the picture does not come, the sound does not come, no light comes but the TV is running on the screen.
Since the TV is running, the motherboard of the TV is less likely to have problems. It could be an inverter problem, a backlight problem or a software problem.
Now we will turn off the TV completely.

Now I will test the backlight. With the backlight tester, we can see the backlight problem here.
Therefore, we will replace a few backlights.

OK we have been replaced, now we will re-fit the TV. We can see the TV is running very nicely now and from the dish line we can see the TV is clear and running very nicely.

Call Today 01872-696791